সার্চইঞ্জিন হিসেবে গুগোল ব্যবহার করছেন? দেখুন গুগোল আপনার বিষয়ে কি কি জানে | Things that Google know about you



শীর্ষ টেক জায়ান্ট কোম্পানীগুলোর মধ্যে গুগোল অন্যতম। কারণ জন্মের পর থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত প্রতিনিয়ত সারা বিশ্বকে গুগোল নানা সুবিধা দিয়ে চলেছে। গত কয়েক বছরে আমরা দেখেছি কিভাবে গুগোল শুধু উন্নতি করে গেছে। আর এর ফলাফল স্বরুপ আমরা দেখতে পাচ্ছি বর্তমানে ইন্টারনেটে গুগোলের একচ্ছত্র প্রভাব। সারা পৃথিবীর ১.১৭ বিলিয়ন মানুষ নিয়িমিত গুগোল সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করছে (পরিসংখান-২০১৩)। পরিসংখানটা ২০১৩ সালের বলে এখন যে এর পরিমান আরো অনেক বেড়ে গেছে তা বলার অপেক্ষা রাখেনা, কারন অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ইউজারের সংখ্যা প্রতিদিন বেড়ে চলছে। ইন্টারনেট জগত ছাড়াও এখন ঘরোয়া বিভিন্ন ইকো সিস্টেম গ্যাজেট (যেমন, গুগোল হোম) জাতীয় প্রযুক্তি পন্য এবং স্মার্টফোন (পিক্সেল) তৈরীতেও গুগোল হাত দিয়েছে।
গুগোলের উন্নতি এখন আকাশ চুম্বি হবার পেছনে বেশ কিছু কারণ রয়েছে তার মধ্যে একটি হচ্ছে নিরাপত্তা (security)। গুগোল শুরু থেকেই ইউজারদের ডেটার নিরাপত্তা বিষয়টাকে অনেক বেশী গুরুত্ব দিয়ে দেখেছে এবং এ জন্য গুগোল বর্তমানে অনেক বেশী বিশ্বস্ত একটি ব্র্যান্ডের নাম। আর এর উদাহরণ হিসেবে জিমেইল বা অ্যাডসেন্সের কথা না বললেই নয় কারণ কোটি কোটি মানুষ এখন গুগোলের অ্যাডসেন্স/জিমেইল ব্যবহার করে। যায় হোক গুগোল যে অনেক বিশ্বস্ত একটি ব্র্যান্ড তা নিয়ে কোন সংশয় থাকা উচিত নয় কারন ইতোমধ্যেই গুগোল সেই প্রমাণ রাখতে পেরেছে। কিন্তু যে কথা গুলো আজকে এখানে লিখবো তা হলো গুগোল আপনার বিষয়ে কি কি জানে। আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না গুগোল আপনার বিষয়ে কত কিছু জানে।
আপনি প্রতিনিয়ত গুগোলের সার্চ বারে গিয়ে যে সার্চগুলো করছেন তার প্রত্যেকটা ওয়ার্ড টু ওয়ার্ড রেকর্ড গুগোলের কাছে আছে। এমনকি গুগোল নাও থেকে গুগোলে যে ভয়েস সার্চ গুলো করা হয় সেগুলোর রেকর্ডও গুগোলের কাছে আছে।
আপনি যদি জিমেইল ইউজার হন তাহলে গুগোল জানে যে আপনি একজন মেল (male) নাকি ফিমেল (female)। আপনার ফোন নাম্বার, কখন কোন সময় কোন সাইটগুলো ভিজিট করছেন, কোন সাইটগুলো বেশী ভিজিট করছেন, কখন কোন ভিডিও স্ট্রীম করছেন, কি ধরনের ডিভাইস ব্যবহার করছেন, কোন অপারেটরের ইন্টারনেট কানেশন ব্যবহার করছেন, কোন দেশের কোন সিটির কোন এলাকা থেকে আপনি ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন, এমন সব তথ্য গুলো গুগোলের সার্ভারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে রেকর্ড হয়ে যায়।
এমনকি আপনার পিসিতে যদি গুগোলের ক্রোম ব্রাউজার ইন্সটল করা থাকে তাহলে গুগোল এও জানতে পারবে যে আপনার হার্ডডিস্কে কি কি আছে। অবাক লাগলেও এগুলো সব কিছু সত্য, গুগোল এখন অনেক বেশী অ্যাডভান্স।
কিছু দিন আগে গুগোল এমন একটি সুবিধা (myactivity.google.com) তার গ্রাহোকদের জন্য নিয়ে আসে যা ব্যবহার করে আপনি গুগোলের সার্ভারে স্টোর হয়ে থাকে এ ধরনের (কোন সাইটগুলো ভিজিট করেছেন) ডেটা গুলো রিমুভ করে ফেলতে পারেন (তবে এর মাধ্যমে আপনার যত প্রকারের ডেটা গুগোলের কাছে আছে সমস্ত কিছু রিমুভ করা যাবেনা, যেমন আপনার কানেকশন সম্পর্কিত ডেটা, আপনি যে এলাকা থেকে নেট ব্রাউজ করছেন সে সম্পর্কিত ডেটা ইত্যাদি)। যদিও গুগলের দাবী আপনার ঐ ডেটা গুলো রিমুভ করার পর গুগোলের কাছে আর ডেটা থাকে না যতক্ষন পর্যন্ত না আপনি নতুন করে আবার গুগোল ব্যবহার করতে শুরু করেন। তবে সত্যি কথা বললে এ নিয়ে সন্দেহ থেকেই যায়, কিন্তু যেহেতু নিশ্চয়তাটা গুগোল নিজে দিচ্ছে সে দিক থেকে বিশ্বাস রাখতে পারেন। আর যদি মনে করেন যে আপনার সিকিউরিটি আরো বাড়ানো উচিত তাহলে প্রাইভেট ভাবে আপনাকে ব্রাউজিং করতে হবে। এখন হয়তবা ব্রাউজারের ইনকগ্নিটো (incognito) মোডের কথা বলতে পারেন কিন্তু সত্যি বলতে ইনকগ্নিটো মোড ব্যবহার করা হলেও তারা আপনার অ্যাক্টিভিটি (কি ব্রাউজ করছেন) ট্র্যাক করতে পারে (যদিও তারা বলে তারা আপনাকে ট্র্যাক করতে পারেনা!)। তাই ব্রাউজারের ইনকগ্নিটো মোড মোটেও সিকিউর্ড (secured) নয়।
যদি আপনি আসলেই আপনার ব্রাউজিং সম্পর্কিত ডেটাগুলো প্রাইভেট করে রাখতে চান তাহলে সেক্ষেত্রে ডাকডাকগো (duckduckgo.com) সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করুন। সারা পৃথিবীতে একমাত্র ট্রাস্টেড (trusted) সার্চইঞ্জিন যা আপনার এক্টিভিটি মোটেও ট্র্যাক করেনা। এজন্য হ্যাকারদের কাছে এই ব্রাউজারটি অনেক জনপ্রিয়। তবে গুগোলের ক্রোম ব্রাউজারের সাথে এই সার্চইঞ্জিনটি ব্যবহার করা হলে গুগোল আপনাকে ট্র্যাক করতে পারবে, এজন্য মোজিলা ফায়ারফক্স ব্রাউজারের সাথে ডাকডাকগো সার্চইঞ্জিনটি ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে ইন্টারনেটে আপনার এক্টিভিটি অনেকটাই প্রাইভেট হয়ে থাকবে।
তবে গুগোল তাদের সার্চইঞ্জিনকে অনেক বেশী সহজতর বা ইউজার ফ্রেন্ডলি করে ফেলেছে এজন্য গুগোল ব্যবহার করার মত অন্য সার্চইঞ্জিনে তেমন মজা পাওয়া যায় না। তাই যে কাজ গুলো আপনার একান্তই প্রাইভেট সেই কাজগুলো ডাকডাকগো সার্চইঞ্জিন ব্যবহার করে সেরে ফেলতে পারেন। বাকী সময় অবশ্যই গুগোল (google) ব্যবহার করতে হবে! কারণ গুগোল ছাড়া নেট ব্রাউজিংটাও যেন জমে না। গুগোলের মত নিখুঁত রেজাল্ট অন্য সার্চইঞ্জিনগুলো অত কম সময়ে দিতে পারেনা। কারণ গুগোলের রয়েছে নিজস্ব রোবট ক্রাওলার।


বিঃদ্রঃ লিখাটি গুগোলকে হেয় বা ছোট করার জন্য মোটেও লিখা হয় নি। একান্তই বাস্তব কিছু তথ্য এবং অভিমত তুলে ধরা হয়েছে মাত্র।
সার্চইঞ্জিন হিসেবে গুগোল ব্যবহার করছেন? দেখুন গুগোল আপনার বিষয়ে কি কি জানে | Things that Google know about you সার্চইঞ্জিন হিসেবে গুগোল ব্যবহার করছেন? দেখুন গুগোল আপনার বিষয়ে কি কি জানে | Things that Google know about you Reviewed by Rone Ahmed on July 28, 2018 Rating: 5

No comments:

Powered by Blogger.