যে ৭টি কারণে আপনি আপনার কাজের প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন (সমাধান সহ) | 7 REASONS WHY SOME PEOPLE ARE ALWAYS UNMOTIVATED with Solution! (in Bengali)

নোবল হচ্ছে একজন মানুষের সবচায়তে বড় সম্পদ যা ওই মানুষটিকে সফলতার দিকে টেনে নিয়ে যেতে পারে।কারণ এটা একজন মানুষকে সবসময় প্রেরণা যোগায় সফল হবার জন্য।তখন আপনি আপনার কাজের প্রতি সবসময় নিজেকে ডেডিকেটেড রাখতে চায়বেন।আর যখনই আপনি আপনার কাজের প্রতি ডেডিকেটেড থাকতে পারবেন আপনি সফল হবেন।
কিন্তু যদি এর ঠিক উল্টোটা হয় তাহলে কি হবে?আপনি প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠছেন কিন্তু কোনকাজে আপনার মন বসছেনা।সারাটা দিন এখানে-ওখানে ঘুরে,শুয়ে-বসে কিংবা টিভি দেখে পার করে দিলেন।যদি এভাবে চলতে থাকে আপনি একসময় আপনার প্রতি নিয়ন্ত্রণ হারাবেন।তখন জীবন আপনার কাছে অতিষ্ঠ মনে হবে।আপনি মনে মনে নিজেকে বলবেন কেন আপনি আর সবার মত কাজে মন বসাতে পারছেন না।এর কারণ হল আপনি আপনার প্রতি মনোবল হারিয়ে ফেলেছেন।এজন্য এখন কাজের প্রতি আপনার কোন আগ্রহ কাজ করছেনা।কিন্তু আমাদের জীবনে এমনটা কেনো হয় এবং এ থেকে কিভাবে বাঁচা যায় জানাতে চেষ্টা করব এই আর্টিকেলের মাধ্যমে।

মনোবল হারিয়ে ফেলা মানুষদের সাথে চলাফেরা করা
সঙ্গ দোষে লোহা ভাসে,এমন একটা কথা প্রচলিত আছে।কথাটা কিন্তু পুরোপুরি সত্য।আপনি যেমন মানুষদের সাথে চলাফেরা করেন আজ না হোক কাল ঐ সব মানুষদের স্বভাব,মেন্টালিটি আপনার মাঝেও চলে আসবে।তবে কারো ক্ষেত্রে খুব তাড়াতাড়ি আসতে পারে আবার কারো ক্ষেত্রে একটু দেরিতে।তাই বেকার,ব্যর্থ এবং জীবন নিয়ে হতাশ এমন মানুষের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে মেশা থেকে বিরত থাকুন।এরা আপনাকে এটাই বোঝাবে সরকারী চাকুরী নিতে গেলে ঘুষ লাগবেই (সে আপনি যতই পড়ালিখা করেন না কেন)কিন্তু এরা কখনোই আপনাকে বলবেনা এদের পরীক্ষার ফলাফলই ছিলো ঘুষ দিয়ে চাকুরী নেবার মত।
কিন্তু আপনি যদি এমন লোকদের সাথে মেশেন যারা তাদের জীবনে সফল তাহলে আপনার জীবন দর্শনও তাদের মত হয়ে যাবে।কারণ এই লোক গুলো সবসময় তাদের ক্যারিয়ার গোল নিয়ে চিন্তা ভাবনা করেন যেখানে আপনার অনেক কিছু শেখার মত থাকবে।আর আপনি এটাও বুঝে যাবেন যে আপনি তাদের মত ন্যূনতম চেষ্টাটিও করেন নি।এই চিন্তা আপনাকে ফুয়েল যোগাবে সামনে এগিয়ে যাবার জন্য,নতুনভাবে চেষ্টা করার জন্য।তাই আজ থেকে ঐ সমস্ত মানুষদের সঙ্গ ছেড়ে সফল মানুষদের সাথে চলতে শুরু করুন কিছু দিন পর আপনার পরিবর্তন আপনি নিজেই টের পাবেন।

আপনার সক্ষমতা অনুযায়ি আপনি কখনো চেষ্টা করেন না
আমি ব্যাক্তিগতভাবে এমন অনেক মানুষকে চিনি যাদের যতটুকু ক্ষমতা আছে ততটুকু কাজে লাগায় না।আপনার সক্ষমতা অনুযায়ি আপনি যদি চেষ্টা না করেন তাহলে আপনার জীবনটা এগিয়ে যাবে না বরং আপনি যেখানে আছেন সারাটা জীবন সেখানেই কেটে যাবে।বক্স অফিস কাপানো বিখ্যাত মুভি টাইটানিক এবং অ্যাভেটর এর নির্মাতা জেমস ক্যামেরনের মোট সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় ৭০০ মিলিয়ন ডলারেরো বেশী (এখন পর্যন্ত)।এত বড়মাপের একজন ডিরেক্টর হয়েও তিনি শুধুমাত্র মুভি মেকিং নিয়ে থেমে থাকেন নি।তিনি মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসারও একজন বিশেষ কর্মকর্তা।
আপনার সক্ষমতাকে একবার মন দিয়ে উপলব্ধি করতে চেষ্টা করুন তাহলেই বুঝতে পারবেন আপনি কত কিছু করার ক্ষমতা রাখেন।শুধুমাত্র সঠিক গাইডলাইনের অভাবে আপনি পিছিয়ে আছেন।

কাজ করতে ইচ্ছা না করা
এমন অনেক মানুষ আছেন যারা কাজের জায়গায় কাজ না করে বরং তাদের সময়টা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে কিংবা আড্ডা দিয়ে পার করে দেন।কারণ কাজের মাঝে তারা কোন মজা পান না।কাজ করতে তাদের ইচ্ছে করেনা।কাজ খুব বিরক্তিকর একটা বিষয় তাদের কাছে।কেনো এমন ধারণা কাজ নিয়ে তাদের মাঝে?আপনার মাঝে যদি এমন কোন চিন্তা আসে তার মানে হল আপনি আপনার কাজকে উপভোগ করতে পারছেন না।কিন্তু কাজ যদি উপভোগ করতে না পারেন তাহলে আপনি কাজকে ভয় পাবেন,কাজ করতে আপনার বিরক্ত লাগবে।এ থেকে বের হওয়া যায় কি করে?যদি এমন হয়ে থাকে কাজটা আপনি পছন্দ করেন কিন্তু তার পরেও আপনার কাজটা করতে বিরক্ত লাগছে এর মানে হল সমস্যাটা আপনার মানসিক এবং এটা অস্থায়ী।এ রোগ থেকে সেরে উঠতে এমন কিছু কাজ করতে পারেন যা আপনাকে আবার আপনার কাজের প্রতি মনোযোগী করে তুলতে পারে।যেমন মোটিভেশনাল কিছু বই পড়া।কারণ বই আপনাকে কখনই ঠকাবেনা,কখনো না কখনো বইয়ের শিক্ষাটা আপনার কাজে দেবেই।কিন্তু কখনই বিনোদনের জন্য টিভি বা সোশ্যাল মিডিয়া গুলোতে সময় নষ্ট করবেন না।কারণ এগুলো নেশার মত।যত সময় দেবেন তত মনে হবে আরো একটু সময় থাকি।এভাবে এগুলো আপনাকে আপনার কাজ থেকে দূরে রাখে।
এজন্য এই আর্টিকেলটা পড়তে পারেনটিভি দেখা কেন বাদ দেবেন?
আর যদি এমনটা হয় যে কাজটায় আপনার অপছন্দ তাই কাজটা করতে বিরক্ত লাগে তাহলে কাজটা ছেড়ে দিন।বরং এমন একটা কাজের জন্য চেষ্টা করুন যা আপনার করতে ভালোলাগে।হয়ত অনেকয় বলবেন নতুন কাজ পাওয়া সহজ নয়।সহজ নয় ঠিকি কিন্তু খুব যে কঠিন তাও তো নয়।
নিজেই কিছু করার ইচ্ছে থাকলে তাও মোটেই খারাপ কিছু নয়।শুধু আপনার মনের কাছে পরিষ্কার হয়ে নিন যা করতে চাচ্ছেন তা আবেগের বশে নাকি আসলেই আপনি মন থেকে কাজটি পছন্দ করেন।

আপনি সময়কে সময়মত ব্যবহার করছেন না
সময়কে সঠিকভাবে ব্যবহার করার মত বিভিন্ন টেকনিক আছে।কিন্তু যেসব মানুষ সময়কে দাম না দিয়ে আজ নয় কাল করব এমন মানসিকতা নিয়ে চলে তারা তাদের জীবন নিয়ে তারা অনেক বেশী হতাশ থাকে।কারণ ঐ কাজ সে আর কখনোই সময় মত করতে পারেনা,তাই সবার থেকে তাকে পিছিয়ে পড়তে হয়।
আপনার মাথায় যদি এটা একবার ঢুকে যায় যে আপনার সময়কে কিভাবে কাজে লাগাবেন তা পুরোটায় আপনার বিষয় এবং এটা নিয়ন্ত্রণ করাটাও শুধুমাত্র আপনার একার ক্ষেত্রেয় সম্ভব এখানে অন্য কারো পক্ষে কিছু করা সম্ভব নয় তাহলে আপনার দ্বারা আর সময় নষ্ট হবে না।
টপিকটি নিয়ে বিস্তারিত জানতে এটি পড়ুন সময়কে পুরোপুরি কাজে লাগাবেন যেভাবে


আপনি এটা বিশ্বাস করতে পারেন না যে আপনারও কিছু করার প্রতিভা আছে
একজন মানুষ যখন নিজের মাঝে সবসময় এ চিন্তা নিয়ে থাকে যে তার কোন কিছু করার মত তেমন কোন প্রতিভা নেই তখন বাকী কাজগুলোও তার দ্বারা করাটা অনেক কঠিন হয়ে পড়ে।কারণ এতে তাকে নিয়ে তার মনে নেগেটিভ সেন্স তৈরী হচ্ছে।নেগেটিভ চিন্তা থেকে কখনো পজেটিভ ফল আসেনা।
আপনি যখন এটা বিশ্বাস করতে শিখবেন যে আপনারো কিছু করার মত প্রতিভা বা মেধা আছে তখনই আপনাকে দিয়ে কোন কাজ হবে।এজন্য নিজেকে নিয়ে পজেটিভ ভাবতে শুরু করুন।কারণ এটা সত্যি যে সৃষ্টিকর্তা সব মানুষকেই কিছু না কিছু করার ক্ষমতা দিয়ে এ পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন।এর মাঝে শুধু তারাই সফল হচ্ছেন যাদের মাঝে নিজের প্রতি আত্নবিশ্বাস থাকে।যারা জানেন দিনের কোন সময়টাকে কিভাবে কাজে লাগাতে হবে।

আপনি ভাগ্যে অনেক বিশ্বাসী
ভাগ্যে বিশ্বাস করাটা দোষের কিছুনা।কারণ ভাগ্য বলতে আসলেই কিছু আছে।কিন্তু আপনি কাজে যথাযথ চেষ্টা না করে যদি ভাগ্যকে দোষ দেন তাহলে এখানে একটু ভুল হচ্ছে।এতে করে আপনি আপনার কাজের প্রতি আরো বেশী আগ্রহ হারিয়ে ফেলবেন।
আপনি একটা কাজ সঠিভাবে শেষ করার পরেও যদি ফলাফল আপনার পক্ষে না আসে সেক্ষত্রে আপনি ভাগ্যের দিকে আঙ্গুল তুলতে পারেন।

মানুষের কথায় কান দেওয়া
মানুষ আপনাকে নিয়ে কি ভাবছে এ চিন্তা থেকে বের হয়ে আসতে হবে।আপনি নিজে যদি আপনার কাছে পরিষ্কার থাকেন তাহলে আর কিছু প্রয়োজন নেই।
মানুষ সমালোচনা করতে পছন্দ করে।আমার মতে এটা মানুষের জ্বিনগত অভ্যাসগুলোর একটা।তাই মানুষ সমালোচনা করবেই।কে আপনার বা আপনার কোন কাজের বিষয়ে কি বলল তাতে কান দেবেন না,এটাকে সহজ ভাবে মেনে নিতে শিখুন,অনেক দুরে যাবেন।

শেষ কথা
নিজে থেকে একটু বুঝতে চেষ্টা করুন কেন আপনি আপনার কাজে বা লিখাপড়ায় মন বসাতে পারছেন না।এটা আপনাকে কোন না কোন একটা ফলাফল দেবে।আজ থাক কাল করব এমন গড়িমসি করা বন্ধ করুন।দৈনন্দিন রুটিনে এই ছোট্ট একটা পরিবর্তন নিয়ে আসুন,এক পর্যায়ে এটা আপনার অভ্যাসে পরিণত হয়ে যাবে।তার পর হুট করে একদিন খেয়াল করবেন মনের ছোট্ট এই পরিবর্তনখানা আপনার পুরো জীবনকেই পাল্টে দিয়েছে।
যে ৭টি কারণে আপনি আপনার কাজের প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন (সমাধান সহ) | 7 REASONS WHY SOME PEOPLE ARE ALWAYS UNMOTIVATED with Solution! (in Bengali) যে ৭টি কারণে আপনি আপনার কাজের প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন (সমাধান সহ) | 7 REASONS WHY SOME PEOPLE ARE ALWAYS UNMOTIVATED with Solution! (in Bengali) Reviewed by Rone Ahmed on July 04, 2018 Rating: 5

No comments:

Powered by Blogger.