Header Ads

test

পিসিতে কোন ব্রাউজার ব্যবহার করবেন | ব্রাঊজার হিসেবে ক্রোম (Chrome) কেমন | Which Browser You Should Use for Your Pc

একটা সময় ছিলো যখন গুগোলের পরিচিত ছিলো শুধু মাত্র সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে।কিন্তু এখন আমরা এমন একটা সময়ের উপরে আছি যখন গুগোল স্মার্টফোনও বানাচ্ছে।শুধু তাই নয় গুগোলের স্মার্টফোনগুলো সুনামও কুড়োচ্ছে বেশ।গুগোলের পিক্সেল ২ গত বছর বাজারে আসলেও তা এখনো ক্রেতা চাহিদাকে পরিপূর্ণরুপে পূরণ করতে সক্ষম।তাই গুগোল এখন টেকনোলজি জায়ান্ট হিসেবে খ্যাত।মাইক্রোসফট,অ্যাপলের মত শীর্ষস্থানীয় টেক জায়ান্টগুলোর নামের সাথে গুগোলের নামটাও এখন আমাদের মুখে এসে যায়।কারণ গুগোলকে চেনেনা কিন্তু এযুগে জন্মেছে এমন মানুষ খুজে পাওয়া বড়ই কঠিন কাজ।
আজকে আমরা গুগোলের ক্রোম ব্রাউজার নিয়ে আলোচনা করবো।
খুব বেশি দিন হয়নি এই তো সে দিন ২০০৮ সালে ক্রোম ব্রাউজার বের হয়েছিলো।অথচ মাত্র এই কয়েক বছরের ব্যবধানে ক্রোম এখন এই গ্রহের সবচাইতে উন্নত এবং দ্রুত ব্রাউজার।
মজার বিষয় হচ্ছে গুগোলের সেই সময়কার সিইও এরিক এমারসন কখনই ওয়েব ব্রাউজারের প্রতিযোগীতাপূর্ণ বাজারে ঢুকতে চান নি কারণ সেই সময় মজিলা এবং মাইক্রোসফটের ব্রাউজারের সুনাম ছিলো আকাশ ছোয়া।পাশাপাশি ব্রাউজার ডেভলপ করার খরচও ছিলো অনেক।পরবর্তীতে সের্গেই ব্রিনল্যারি পেইজ কে নিয়ে যখন গুগল আরো পুনরিজ্জিবিত হয়ে ওঠে তখন তিনি মোজিলা ফায়ারফক্স থেকে কিছু ওয়েব ডেভেলপারকে ভাড়া করে আনেন এবং ক্রোম নামে একটি খসড়া ওয়েব ব্রাউজার তৈরি করেন।এর পর ধীরে ধীরে এর মধ্যে অনেক যোজন-বিয়োজন করার পরে তা বর্তমান রূপ নিয়েছে।
বিশেষ কিছু এক্সটেনশন,টুল,দ্রুতগতি এবং ইউজার ফ্রেন্ডলি হবার কারণে ক্রোম ব্রাউজারের জনপ্রিয়তা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।
এখানে আমরা কিছু এক্সটেনশনের সাথে পরিচিত হব যা ক্রোমকে অন্য ব্রাউজার গুলো থেকে এগিয়ে রেখেছে।

Care your Eyes
এমন অনেকেই আছেন যাদেরকে অনেক রাত জেগে নেটে কাজ করতে হয় আবার অনেকেই বিনোদনের জন্য রাতে লম্বা সময় ধরে পিসি বা ল্যাপ্টপের সামনে বসে ইন্টারনেট ব্রাউজ করতে ভালবাসেন।কিন্তু,যেহেতু বেশীরভাগ ওয়েবসাইট গুলোর ব্যাগ্রাউন্ড সাদা থাকে তাই স্বাভাবিক ভাবেই চোখে আলো লাগে।বিশেষজ্ঞদের মতে এই ধরনের আলো আমাদের চোখের রেটিনার অন্যতম শত্রু।
গুগোল ক্রোম এই সমস্যা থেকে বাচার জন্য Care your eyes নামে একটি এক্সটেনশন তাদের ক্রোম স্টোরে দিয়ে রেখেছে।যা আপনি আপনার ব্রাউজারে ইন্সটল করলে আপনি যেকোন ব্রাউজারের ব্যাগ্রাউন্ড সাদা থেকে কালো(Dark)করতে পারবেন।এতে আপনার চোখ অনেকখানি রেহায় পাবে।
মোজিলা ফায়ারফক্সের জন্য এরকম একটা টুল পাওয়া গেলেও তা Care Your Eyes এর মত অতটা ভালো কাজ করেনা।কারণ কিছু ওয়েবসাইটে ভিডিও দেখতে গেলে ওয়েবপেজের ব্যাগ্রাউন্ড ডার্ক হবার সাথে সাথে ভিডিওর ব্যাগ্রাউন্ডো ডার্ক হয়ে যায় ফলে ভিডিও আর দেখা যায় না।

এক্সটেনশনটি আপনার ক্রোম ব্রাউজারে যোগ করতে চাইলে গুগোলে গিয়ে Care Your Eyes লিখে সার্চ দিন,এরপর ক্রোম ওয়েবস্টোরের লিঙ্কএ প্রবেশ করলে উপরের ছবির মত দেখতে পাবেন।Add to chrome এ ক্লিক করলে আপনার ক্রোমে অ্যাড হয়ে যাবে।

Adult Blocker
এই এক্সটেনশনটা সেই সমস্ত পিতা-মাতার জন্য যারা তাদের বাচ্চাকে এডাল্ট কন্টেন্ট থেকে দূরে রাখতে চান।কারণ টেকনোলজির প্রসার এখন আমাদের সমাজে এত বেশী যে মনের অনিচ্ছা স্বত্তেও নিজের সন্তানের হাতে স্মার্টডিভাইস তুলে দিতে হয়।কিন্তু যেহেতু ইন্টারনেটে এডাল্ট কণ্টেন্টের বিস্তার অনেক বেশী তাই মনের মধ্যে সব সময় একটা ভয় কাজ করতে থাকে।ক্রোমের এডাল্ট ব্লকার এদিক থেকে পিতা-মাতাকে অনেকটায় স্বস্তিতে রাখতে পারে।কারণ এটা খুব সুন্দর কাজ করে।অনেকেই নেটডগের মত সফটোয়ার ইন্সটল করে রাখেন কিন্তু নেটডগের কোন ফ্রি ভার্সন পাওয়া যায়না সুতরাং নেটডগ চালাতে হলে আপনাকে এর লাইসেন্স কিনে চালাতে হবে।এদিক থেকে এই এক্সটেনশনটি এগিয়ে থাকবে।অন্যদিকে ব্রাউজারে এটা আপনি হাইড করেও রাখতে পারবেন যার দরুন আপনার সন্তান এটা খুজে পাবেনা।তারপরেও আরো নিশ্চিন্তে থাকবার জন্য এতে পাসওয়ার্ডএর ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।কোন ওয়েবসাইটে যদি বিন্দু মাত্র প্রাপ্তবয়স্ক কন্টেন্ট থাকে তাহলে এডাল্ট ব্লকার ওই সাইট ভিজিট করতে দেবেনা(এক্সেস ডিনাইড শো করবে)।সাইটটি যদি আপনার সন্তান ভিজিট করতে চায় তাহলে পাসওয়ার্ড চায়বে।পাসওয়ার্ড না দিলে ঐ সাইট ভিজিট করতে পারবেনা।
আপনি চাইলে এই এক্সটেনশনটির সাহায্যে কিছু ওয়েবসাইট ব্লক করে রাখতে পারবেন যা আপনার বাচ্চা ভিজিট করতে পারবেনা।

Chrome Lock
অনেক সময় আমরা আমাদের ব্রাউজারে কিছু বুকমার্ক করে রাখতে চাই যার জন্য প্রাইভেসি দরকার হয়ে পড়ে।আবার অনেক সময় ফ্রেন্ডরা ইয়ারকির ছলে ব্রাউজার হিস্টোরি চেক করে থাকে।এ ধরনের অবস্থায় পড়া খুবই বিরক্তিকর।

এই ধরনের ঝামেলা এড়াতে ক্রোম লক এক্সটেনশন খুব কাজে দেয়।এর মাধ্যমে আপনার ব্রাউজার লক করা সম্ভব।কেউ যদি আপনার অনুপস্থিতিতে ব্রাউজারটি ওপেন করে তাহলে ব্রাউজারটি পাসওয়ার্ড চায়বে।পাসওয়ার্ড ভুল হলে অথবা না দিতে পারলে ব্রাউজারটি ওপেন হবেনা এবং অটোমেটিকভাবে ক্লোজ হয়ে যাবে।

এছাড়া
ক্রোম ইন্সটল করার সময় নিজের জিমেইল একাউন্ট দিয়ে রেজিস্টার করলে পরবর্তীতে ব্রাউজারটি কোনভাবে আনইন্সটল হয়ে গেলে আবার ইন্সটল করার সময় যদি ঐ একই মেইল দেয়া হয় তাহলে পূর্বের বুকমার্ক করা লিঙ্ক কিংবা এক্সটেনশন তথা ব্রাউজারের সব কিছু আগের মত অবস্থায় ফিরে পাওয়া যায়।এটা অনেকটা সিঙ্ক করার মত কাজ করে থাকে।
-
এখানে আমরা ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহারের কিছু সুবিধা তুলে ধরার চেষ্টা করেছি যেগুলো এই ব্রাউজারকে অন্য পিসি ব্রাউজারগুলোর তুলনাই ভালো অবস্থানে দাড় করিয়েছে।
যেহেতু বর্তমান ভার্চুয়াল যুগে গুগোলের রাজত্ব চলছে তাই এটা স্বাভাবিক যে গুগোলের নিজস্ব ব্রাউজারের স্পিড অনেক বেশী হবে(অন্য ব্রাউজারগুলোর তুলনাই)।কারণ গুগোল সব সময় চায়বে মানুষ তাদের ব্রাউজার বেশী ব্যবহার করুক।

No comments