Header Ads

test

চা এর যত উপকারীতা | রঙ চা কেন খাবেন (Benefits Of Black Tea)

চায়ের উপকার জেনে অথবা না জেনে আমরা প্রতিনিয়তই চা পান করে চলেছি।কারণ চা ছাড়া যেন আমাদের চলেয় না তাই এটা অনেকটা আমাদের প্রতিদিনকার রুটিনের মত।অফিসের কলিক কিংবা ভার্সিটি ক্যাম্পাসে বন্ধুদের সাথে আড্ডায় চায়ের জুড়ি মেলা ভার।তাই খুব কম মানুষ পাওয়া যাবে যারা চা খান না।
আজকে আমরা রঙ চা(Black Tea)এর উপকারীতা নিয়ে আলোচনা করব।
ছোট বড় মিলিয়ে রঙ চায়ের আছে বহু উপকারীতা।

উচ্চ রক্তচাপ কমাতে
বিশ্বের প্রায় ১০০ কোটি মানুষ এ সমস্যায় ভুগছেন()শুধুমাত্র এর কারণে আপনার কিডনী ফেইলিউর,স্ট্রোক এমনকি হার্টের সমস্যা পর্যন্ত হতে পারে।
কিন্তু আমাদের খাদ্যাভাস এবং জীবনযাত্রায় কিছু পরিবর্তন এনে উচ্চ রক্তচাপকে অনেকটায় নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব()
এক গবেষণা থেকে উঠে এসেছে রঙ চা উচ্চ রক্তচাপ কমাতে অনেকখানি ভুমিকা পালন করে থাকে।ঐ গবেষনায় অংশগ্রহনকারী প্রত্যেককে ৬ মাস পর্যন্ত প্রতিদিন ৩ কাপ রঙ চা পান করতে দেয়া হয়।এর ফলাফল হিসেবে দেখা যায় যেসকল অংশগ্রহনকারী এ নিয়ম মেনে চলেছেন তাদের সিস্টোলিক এবং ডা্য়েস্টোলিক রক্তচাপ উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কমে গিয়েছিলো()
ব্রিটিশ জার্নাল অব নিউট্রিশনে প্রকাশিত আরেক গবেষণাতেও এই একই রকম তথ্য উঠে এসেছে()

হৃদযন্ত্রের জন্য উপকারী
রঙ চা এ ফ্ল্যাভোনয়েডস (flavonoids) নামে এক প্রকার এন্টিঅক্সিডেন্ট(এন্টিঅক্সিডেন্ট আমাদের শরীরের জন্য অনেক উপকারী) থাকে যা হৃদযন্ত্রের জন্য খুব উপকারী।চা ছাড়াও বিভিন্ন শাক-সবজি,ফলমুল এবং ডার্ক চকলেটেও এন্টিঅক্সিডেন্ট পাওয়া যায়।নিয়মিত এই খাবার গুলো গ্রহন করার ফলে হৃদযন্ত্রের বিভিন্ন অসুখ যেমন,উচ্চ রক্তচাপ,উচ্চ কোলেসটেরল অনেকটায় প্রতিরোধ করা সম্ভব()
আরেক গবেষনা থেকে পাওয়া যায় যারা প্রতিদিন ৩ কাপ লাল চা পান করে থাকেন তাদের হৃদরোগের ঝুকি ১১ শতাংশ কম থাকে সেই সমস্ত ব্যাক্তির তুলনায় যারা এটা পান করেন না।()

ক্যান্সার প্রতিরোধে
প্রায় ১০০ ধরনের ক্যান্সার আছে যাদের মাঝে কয়েকটি এখন পর্যন্ত প্রতিরোধযোগ্য।রঙ চা এ থাকা পলিফেনোল(Polyphenol)ক্যান্সার কোষ জন্মাতে বাধা দেয়।এ নিয়ে একদল গবেষকের একটি টেস্টটিউবে চালানো গবেষণায় দেখা গিয়েছিলো পলিফেনোল কিভাবে ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধি রোধ করছে এবং নতুন ক্যান্সার কোষ তৈরীতে বাধা দিচ্ছে।()
আরো একটি গবেষণা থেকে উঠে এসেছে যে মহিলাদের হর্মোন নিরভর ব্রেস্ট টিউমারগুলো প্রতিরোধেও পলিফেনল মুখ্য ভুমিকা পালন করে।()

ডায়াবেটিসের ঝুকি কমায়
বর্তমান যুগে এসে ডায়েবেটিস খুব সাধারণ রোগ হিসেবে দেখা দিয়েছে।প্রায় বাসাগুলোতেয় এখন ডায়েবেটিস রোগীর দেখা মেলে।
যদিও রঙ চা ডায়াবেটিসের কোন ঔষধ নয় কিন্তু এক তথ্য বলছে যারা প্রতিদিন ৩ কাপ রঙ চা পান করে থাকেন তাদের টাইপ-২ ডায়াবেটিস হবার ঝুকি ৪২ ভাগ কম থাকে।()
এজন্য এখন ডায়াবেটিস রোগীদের খাবার তালিকায় চাও রাখা হয় উপকারী হিসেবে।

স্ট্রেস বা মানসিক চাপ কমাতে
চা স্ট্রেস রিলিভার বা চাপ প্রশমন হিসেবে খুব ভালো কাজ করে।এজন্য ব্যস্ততার মাঝে এককাপ চা হতে পারে আপনার সেই সময়ের সবচাইতে দরকারি পানীয়।

স্ট্রোকের ঝুকি কমায়
বর্তমানে,বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর ২য় প্রধান কারন হিসেবে স্ট্রোককে দায়ি করা হয়(১০)মস্তিস্কে রক্ত ক্ষরনের কারণে এটা ঘটে থাকে।বেশীরভাগ স্ট্রোকই প্রতিরোধ যোগ্য।এর জন্য নিয়মিত খাওয়া-দাওয়া,ব্যায়াম করা,রক্ত চাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা এবং ধুমপান থেকে বিরত থাকায় যথেষ্ট।
গবেষণায় উঠে এসেছে চা স্ট্রোকের ঝুকি কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে অনেকাংশে দায়ি।প্রায় ১০ বছর ধরে ৭৫ হাজার লোকের উপরে এই গবেষণা চালানো হয়েছিলো যাতে দেখা যায় যে সকল মানুষ দিনে ৪ কাপ চা পান করে থাকেন তাদের স্ট্রোক হবার ঝুকি ৩২ ভাগ কমে যায় সেই সমস্ত মানুষের থেকে যারা চা পান করেন না।(১১)

শেষ কথা
চা পানের রয়েছে বহু উপকারীতা।আমরা খুব সংক্ষিপ্ত আকারে একটা ধারণা দেবার চেষ্টা করেছি মাত্র।বাজারে এন্টিঅক্সিডেন্টের অনেক সাপ্লিমেন্ট পাওয়া যায় কিন্তু সব চাইতে ভালো হয় যদি কোন প্রাকৃতিক খাবার থেকে আমরা এন্টিঅক্সিডেন্ট গ্রহন করতে পারি কারন কিছু গবেষণা বলছে এই সব সাপ্লিমেন্ট স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক(১২)
নিয়মিত চা পান করা যেতে পারে কিন্তু অতিরিক্ত কোন কিছুই ভালো নয় তাই দিনে ৩ কাপের বেশী চা পান করা থেকে বিরত থাকুন এবং চাএ চিনি কম খাওয়ার অভ্যাস তৈরী করুন।(অতিরিক্ত চা পানের ফলে অনেক সময় ঘুম কম হতে পারে)।

No comments