number ones

চায়নিজ কোন ডিভাইসগুলো আপনার কেনা উচিত | Which Chinese Devices You Should Buy!(in Bengali)


চায়না প্রযুক্তির দিক থেকে এখন অনেক উন্নত।কিন্তু তারপরেও কাউকে যদি আমরা দেখি চায়নার তৈরী কোন ডিভাইস ব্যবহার করছে তাহলে আমরা একটু ছোট চোখে দেখি।বিশেষ করে আমার সাথে এটা একসময় খুব হত।কাউকে যদি দেখতাম হাতে চায়না ডিভাইস ধরে আছে তাহলে নিজে নিজে একটু ভাব নিয়ে ফেলতাম।মনে মনে বলতাম ধুর!!এটা কোন ডিভাইস হল!কি এসব আজে বাজে ডিভাইস মানুষ ব্যবহার করে!২০১৭ সালের আগে পর্যন্ত আমার এমন ধারণায় কাজ করত।এর পর ২০১৭ সালে চায়নার জাতীয় ব্র্যান্ড ওয়ানপ্লাস এবং শ্যাওমির ডিভাইসগুলো খুব কাছে থেকে দেখা এবং ব্যবহার করার সুযোগ হয়।যার পর থেকে চায়নিজ ব্র্যান্ডগুলো নিয়ে আমার ধারণা বদলাতে থাকে।
শ্যাওমির কিছু লো বাজেট ডিভাইস (যেমন রেডমি ৪,রেডমি ৪ এক্স,মি ৫) ইত্যাদি আমার চোখে আসে যেগুলো কম দাম অনুযায়ী বাংলাদেশ কিংবা ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটে খুব বড় রকমের প্রভাব ফেলে দিয়েছিলো।এ নিয়ে আমি রীতিমত অবাক বিভিন্ন গ্রুপে শ্যাওমির মিডরেঞ্জ ডিভাইসগুলো নিয়ে মানুষের হাইপ দেখে।কারণ শ্যাওমি নামের সাথে আমার খুব অ্যালার্জি কাজ করত।নামটায় যেন কেমন,এটা কোন ব্র্যান্ডের নাম হল!
কিন্তু যখন শ্যাওমির ডিভাইসগুলো নেড়ে চেড়ে ব্যবহার করে আমি খুব অবাক কারণ দাম অনুযায়ী এর ডিভাইসগুলো বাজারের যেকোন হাইএন্ড ডিভাইসগুলোকেও অনেক সময় পেছনে ফেলে দিত।কারণ শ্যাওমি খুব অল্প দাম এমন ডিভাইসগুলোতেও কোয়ালকমের চীপসেট ব্যবহার করে যেখানে একই বাজেটের অন্য ব্র্যান্ডগুলোর ডিভাইসগুলোতে মিডিয়াটেক চীপসেট ব্যবহার করা হয়।স্যামসাং আইফোন এগুলো যে খারাপ আমি এখানে সেটা বলতে চাচ্ছিনা।আমি নিজেও আইফোনের একজন বড় ভক্ত (আমি মানি আইফোনের মত ডিভাইস হয়না) এবং স্যামসাং এর এস সিরিজের ফোন গুলো আমারও অনেক পছন্দ কিন্তু লো বাজেট অথবা মিড রেঞ্জএর কথা চিন্তা করলে শ্যাওমি অন্য যেকোন ডিভাইসগুলোর তুলনায় ভালো সাপোর্ট দেয়।যেখানে স্যামসাং এর ক্ষেত্রে বিষয়টা একেবারেয় বিরক্তের।যারা স্যামসাং এর লো বাজেট ফোনগুলো ব্যবহার করেন এটা তাদের জেনে থাকবার কথা।রেগুলার ইউজের জন্য স্যামসাং এর এই ডিভাইসগুলো কোন সমস্যা যদিও করেনা কিন্তু যারা একটু নেট ব্রাউজ কিংবা গেমিং এ আগ্রহী তাদের অভিজ্ঞতা মোটেও ভাল হয়না।তবে ডিসপ্লের জন্য স্যামসাংএর ডিভাইসগুলো যেকোন ডিভাইস থেকে সবসময় এগিয়ে এটা মেনে নিতে হবে।কারণ স্যামসাং ডিসপ্লে প্রযুক্তিতে এখন সবচেয়ে বেশী উন্নত।
যায় হোক আমরা শ্যাওমি কিংবা এরকম কিছু চায়না ব্র্যান্ড নিয়ে কথা বলছিলাম যেগুলো উন্নত সার্ভিস এবং অন্যান্য নামকরা ব্র্যান্ডের চেয়ে কম দামে ভালো মানের ডিভাইস বাজারে নিয়ে আসবার কারণে এখন স্মার্টফোন বাজারে বড় একটা জায়গা দখল করে নিয়েছে।এদের মাঝে আরো একটা নাম যার কথা এখানে না বললেই নয় তা হল ওয়ানপ্লাস।
এক সময় শুধুমাত্র ইউটিউবে ওয়ানপ্লাসের ফোনগুলো নিয়ে কথা হত।কিন্তু এখন রীতিমত বড় বড় বিভিন্ন নিউজ চ্যানেল,পেপার এবং নাম করা ওয়েবসাইটগুলোতেও ওয়ানপ্লাসের ডিভাইসগুলো রিলিজ হওয়া নিয়ে বিভিন্ন তথ্য প্রচার করা হয়।নামকরা ব্র্যান্ডগুলোর ফ্লাগশিপ ডিভাইসগুলোর সমস্ত সুবিধা ওয়ানপ্লাস দিতে পারে তার অর্ধেক দামে তাই যারা প্রযুক্তির সাথে একটু আপডেটেড থাকতে পছন্দ করেন কিংবা গেইম খেলতেও খুব ভালো যাদের লাগে অথচ বাজেট তুলনামুলক কম তাদের কাছে ওয়ানপ্লাস খুব বিশ্বাসযোগ্য একটি ব্র্যান্ড।উন্নত হার্ডওয়ার,ভালো মানের ক্যামেরা এবং প্রিমিয়াম লুক সব কিছুই থাকে ওয়ানপ্লাসের ডিভাইসগুলোতে।
বর্তমানে যারা ২০ হাজার টাকার আশে পাশে ফোন নেয়ার কথা ভাবছেন তারা শ্যাওমির নতুন ডিভাইস নোট ৫ প্রো কিনে নিতে পারেন।দাম এবং পার্ফমেন্স অনুযায়ী এই বাজেটে অন্য যেকোন ডিভাইস অনেক পিছিয়ে এই ডিভাইস থেকে।
কিছু দিন আগে নকিয়ার ফোন কেন কেনা উচিত নয় এরকম একটা আর্টিকেল লিখেছিলাম।এতে অনেক নকিয়া লাভার আমার ওপরে রেগে গিয়ে থাকতে পারেন।কিন্তু এটা ভাববেন না যে আমি একজন নকিয়া হেটার।আমি নিজেই নকিয়া ৩৩১০ ডিভাইসটি ব্যবহার করি শুধুমাত্র নকিয়াকে পছন্দ করি বলে।কিন্তু যখন দেখলাম নকিয়া এখনো তাদের পুরোনো পথেয় চলছে যে পথে চলার কারণে নকিয়া কে বিক্রি হতে হয়েছিলো একমাত্র সে কারনেই ওই আর্টিকেলটি লিখা হয়েছিলো।এবার কাজের কথায় আসি,কিছু দিন আগে নকিয়া ৭ প্লাস এবং নকিয়া এক্স ৬ নামে নকিয়া দুইটি ফোন বাজারে নিয়ে আসে।অফিসিয়ালি ৪০ হাজারের মত হলেও আনঅফিসিয়ালি নকিয়া ৭ প্লাস পাওয়া যাবে ৩২ হাজার টাকার মধ্যে।আমার মতে এই বাজেটে অসম্ভব সুন্দর এই ডিভাইসটি।বডি থেকে শুরু করে পারফর্মেন্স কোন কিছুই আপনাকে ভুগাবেনা।যদি কোন নকিয়া লাভার অথবা এরকম বাজেটে ভালো একটা হার্ডকোর ডিভাইস চাচ্ছেন এমন কেউ আর্টিকেলটি পড়ে থাকেন শোরুমে গিয়ে অন্তত ডিভাইসটি নেড়ে চেড়ে একবার হলেও দেখে আসুন।আশা করছি পছন্দ হবেই।নকিয়া এক্স ৬ এর দাম পড়তে পারে ২৫ হাজারের আশেপাশে।বাজেট অনুযায়ী বসন্ত ডট নেটের পক্ষ থেকে দুইটা ডিভাইসই কেনার জন্য রিকমেন্ড করছি।তবে ভুলেও নকিয়া ওয়ান কাউকে কিনতে দেবেন না বা কেনার জন্য উৎসাহ দেবেন না।কেনার পর শুধু মনে হবে টাকাটা পুরোটায় জলে গেলো।তাই নকিয়া ১ থেকে দূরে থাকুন।
স্যামসাং, গ্যালাক্সি অন ৭ প্রাইম নামে নতুন একটা সুন্দর গাধা বাজারে ছেড়েছে।পারলে এই ডিভাইসটি নেওয়া থেকেও ১০ হাত দূরে থাকুন।আমার মতে ৩০ হাজারের নিচে কোন স্যামসাং ডিভাইস কেনাই উচিত নয়।হ্যা নিতে পারেন যদি পরিচিত কেউ তার গ্যালাক্সি এস ৭ (Galaxy S7) ডিভাইসটি আপনার কাছে বিক্রি করতে চায় তাহলে।কারণ আপনি স্যামসাঙ্গের কদর তখনই বুঝতে পারবেন যখন আপনি এস সিরিজের ডিভাইসগুলো ব্যবহার করবেন।কারণ সবচায়তে গুরুত্ব দিয়ে স্যামসাং তাদের এস সিরিজের এই ফ্লাগশিপ ডিভাইসগুলো বানিয়ে থাকে।

একটু অফ টপিক হয়ে গেলো কিন্তু বিষয়গুলো এখানে নিয়ে আসলাম আপনাদের উপকারে লাগতে পারে বলে।আজ এ পর্যন্তই ভালো থাকুন,বসন্তর সাথেয় থাকুন,যে কোন সমস্যা কমেন্ট বক্সে লিখে ফেলুন।আবারো নতুন কোন আর্টিকেল নিয়ে আপনাদের মাঝে হাজির হব।Bye!

No comments