number ones

শিয়াওমি mi A1 রিভিউঃ কম বাজেটে পারফেক্ট স্মার্টফোন

শিয়াওমি mi A1 (রিভিউ)

এখনকার দিনে যদি কাউকে জিজ্ঞেস করা হয় কম বাজেটে ভাল ফোন কোনটা তাহলে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেয় উত্তরটা হয়তবা শিয়াওমির পক্ষেয় আসবে। মাত্র সাত বছর আগেয় যাত্রা শুরু করেছিলো এই চাইনিজ প্রতিষ্ঠানটি অথচ যেখানে নকিয়া/ব্ল্যাকবেরির মত জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানগুলো স্মার্টফোনের যুগে এসে তাল মেলাতে অনেকটায় ব্যর্থ সেখানে এত কম সময়ের মাঝে শিয়াওমির মার্কেট দখল করার বিষয়টা একটু হলেও ঈর্ষণীয় তো বটেয়। গত বছর শুধু মাত্র ভারত থেকেয় ১ বিলিয়ন ডলার আয় করার খবরটাও কারো অজানা নয়।
কম বাজেটে প্রায় সব গুলো চাইনিজ প্রতিষ্ঠানি উন্নত ফীচার যুক্ত স্মার্টফোন বাজারে আনছে কিন্তু শিয়াওমির কথা এদিক থেকে একটু আলাদা ।কারণ বেশ কিছু দিন ধরেয় শিয়াওমি এমন কিছু লিজেন্ডারি ডিভাইস বাজারে নিয়ে আসছে যেগুলো অ্যাপল বা স্যামসাং এর মত ব্র্যান্ডের ফ্লাগশিপ ডিভাইসগুলোকেও কিছু কিছু ক্ষেত্রে হার মানিয়েছিলো। mi5 এক্ষেত্রে একটি সহজ উদাহরন হতে পারে।
 
সম্প্রতি mi A1 নামে শিয়াওমির নতুন একটি ডিভাইস বাজারে এসেছে।ডিভাইসটি বাজারে আসার পর থেকেয় বেশ সাড়া ফেলে দিয়েছে মিড রেঞ্জ ক্রেতাদের মাঝে।কারণ বেশ ভালো কিছু ফিচার দেয়া হয়েছে এই ডিভাইসটিতে।আর নতুনত্ব বলতে এতে দেয়া হয়েছে পিওরঅ্যান্ড্রয়েড(যদিও নকিয়া/লেনোভো স্টকঅ্যান্ড্রয়েড আগে থেকেয় দিয়ে আসছে কিন্তু শিয়াওমিতে এটা নতুন)নোগাট সহ ডুয়েল ক্যামেরা।আজকে এই ডিভাইসটি নিয়েই একটা রিভিউ লেখার চেষ্টা করব।


ডিজাইন

 

ডিজাইনের দিক দিয়ে কোন কমতি রাখেনি শিয়াওমি।mi A1 এর বডি তৈরিতে ব্যবহার করা হয়েছে সলিডঅ্যালুমিনিয়াম।ফোনটির চার পাশে সাইড বারে সূক্ষ ডায়মন্ড কাট দেয়া হয়েছে যা সত্যি নজর কাড়বার মত। ব্যাকপার্টের একেবারে ওপরে এবং নিচে খুব সুন্দর ভাবে স্থান দেয়া হয়েছেঅ্যান্টেনা লাইনকে। ডান দিকে রাখা হয়েছে পাওয়ার কি ও ভলিয়ুম কি এবং বাম দিকে রয়েছে সিম স্লট। একেবারে নিচে রয়েছে অডিও জ্যাক, চার্জিং পোর্ট এবং স্পিকার গ্রীল।পেছনের দিকে ডুয়েল ক্যামেরাটি আলাদা একটা সৌন্দর্যের সৃষ্টি করেছে( অনেকটা আইফোন ৭ প্লাসের মত)। এর পরেই বসানো হয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর।ফোনটি হাতে নেয়া মাত্র কোন জায়ান্ট ব্র্যান্ডের ফ্লাগশিপ ডিভাইসের মত ভালো একটা প্রিমিয়াম ফীল পাবেন আপনি এবং এক হাতে ফোনটা ব্যবহার করতে এতটুকুও বিরোক্ত লাগবেনা। তাই এদিক থেকে শিয়াওমি mi A1 পাচ্ছে ০৯/১০।

ডিস্পপ্লে

 

ডিভাইসটিতে দেওয়া হয়েছে ৫.৫ ইঞ্চি এলটিপিএস আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে যার রেজুলেশন ১০৮০*১৯২০ পিক্সেল এবং ৪০৩ পিপিআই পিক্সেল ডেনসিটি যা এখনকার দিনের স্মার্টফোন গুলোর জন্য খুব সুন্দর একটা প্যাকেজ।আর এই প্যাকেজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এর সাথে জুড়ে দেয়া হয়েছে ৩য় প্রজন্মের একটা গোরিলা গ্লাস(যদিও শিয়াওমির ওয়েবসাইটে এ নিয়ে কিছু বলা হয় নি)। মিড বাজেটের ফোন হিসেবে ডিসপ্লের পিকচার কুয়ালিটি যদিও আপনাকে হতাশ করবে না কিন্তু তারপরেও কালার রিপ্রডাকশন আরেকটু উন্নত হলে মন্দ হত না।তবে যেহেতু এটি গুগোলের স্টকঅ্যান্ড্রয়েড চালিত ফোন তাই শিয়াওমির MIUI এ থাকা রিডিং মোড এতে নেই।এদিক থেকে এই ডিভাইসকে দেয়া যায় ৭.৯/১০।

হার্ডওয়্যার

 

ডিসপ্লে এবং ডিজাইনের মত হার্ডোয়ারের দিকেও বেশ ভালো এগিয়ে mi A1. এতে ব্যবহার করা হয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৬২৫ চিপসেট, সাথে ৪ জিবি র‍্যাম এবং ভালো গেমিং আউটপুট পেতে অ্যাড্রিনো ৫০৬ এর মত জিপিইউযেহেতু MIUI এর মত কোন ভারী কাস্টোমাইজ UI এতে নেই তাই হেভি ইউসেজেও তেমন কোন ল্যাক চোখে পড়েনি এবং Asphalt 8, Brothers in Arms 3 এর মত হাই এন্ড গেম গুলো কোনো রকম ল্যাক ছাড়ায় খেলা যায়। আরো একটা প্লাস পয়েন্ট হলো এতে ৬৪ জিবি ইন-বিল্ট স্টোরেজ দেয়া হয়েছে এবং ১২৮ জিবি পর্যন্ত এটাকে বাড়িয়ে নেওয়া যাবে।এছাড়াও এর ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর বেশ ফাস্ট এবং অ্যাকুরেট।আর এর স্পিকারের কথা না বললেয় নয়,অসাধারন সাউন্ড কুয়ালিটি এর স্পিকারের।সুতরাং বোঝায় যাচ্ছে এ দিক থেকে কোন কমতি রাখেনি শিয়াওমি তাই হার্ডওয়ারের দিক থেকে এই ডিভাইস পাবে ০৮/১০।

ক্যামেরাweak point

 

সম্ভবত এই বাজেটে এটায় প্রথম ফোন যেটাতে পেছনের দিকে ডুয়েল ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। দুটো ক্যামেরায় 12 mp এর। এদের একটিতে ব্যবহার করা হয়েছে 2.2অ্যাপার্চারেরএর ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্সএবং আরেকটিতে ব্যাবহার করা হয়েছে 2.6অ্যাপার্চারের টেলিফোটো লেন্স। ক্যামেরা UI তে mi ক্যামেরাঅ্যাপ ব্যবহার করা হয়েছে কারন গুগোল এখনো স্টকঅ্যান্ড্রোয়েড ক্যামেরাঅ্যাপে ডুয়েল ক্যামসমর্থন করেনা।অটো মোডে খুব সুন্দর ছবি তুলতে সক্ষম এই ক্যামেরা এবং খুব সুন্দর ব্যাকগ্রাউন্ড ব্লার(বকেহ ইফেক্ট) করা যায়।। এছাড়াও 2x পর্যন্ত জুম করে ছবি ওঠানো যায় এবং এতে ছবি একটুও ফাটেনা।কিন্তু বিপত্তিটা ঘটে কম আলোতে ছবি উঠালে কারণ বেশ নয়েস লক্ষ্য করা যায় ছবিতে এবং ব্লার কুয়ালিটিও তখন খারাপ হয়ে যায়। এছাড়াও এতে 30 ফ্রেম রেটে 4K শ্যুট করা গেলেও OIS(অপ্টিকাল ইমেজ স্টাবিলায়জেশন) সুবিধা না থাকার কারণে স্থির অবস্থায় ভিডিওকুয়ালিটি সন্তোষ জনক হলেও নড়া-চড়া অবস্থায় বেশ শেকি (shake) ভিডিও হয়।ডিভাইসটির সামনে 5mp এর একটি ক্যামেরা (মোটামোটি মানের সেলফী ওঠে) দেওয়া হয়েছে তবে কোন ফ্লাস রাখা হয় নি তাই সেলফী প্রেমীরা এটা থেকে দূরে থাকায় ভালো। এক্ষেত্রে mi A1 এর স্কোর ০৭/১০।

সফটওয়্যার

 

ক্যামেরার দিকে কিছুটা পিছিয়ে থাকলেও সফটওয়্যারের দিক থেকে বাজারের যে কোন ডিভাইসের চাইতে ঢের এগিয়ে শিয়াওমি mi A1.অ্যান্ড্রয়েড নোগাট ৭.১.২ ভার্সনে রান করলেও এই ডিভাইসটির সফটোয়্যার অপ্টিমাইজেশন এতটায় নিখুত ভাবে করা হয়েছে যে পরবর্তী ২ বছর নিশ্চিন্তে পার হয়ে যাবে । কারণ আপনি অ্যান্ড্রয়েড ওরিও(Android 8.0,অ্যান্ড্রয়েড ওরিও এবছরের ডিসেম্বরের দিকে অথবা ২০১৮ সালের ১ম দিকে আসবার কথা রয়েছে)তো পাবেনি আবারঅ্যান্ড্রয়েড পি (অ্যান্ড্রয়েড ওরিওর পরের ভার্সন২০১৮ সালের শেষ দিকে অথবা ২০১৯সালের ১ম দিকে বের হতে পারে)ও পাবেন এছাড়াও প্রতি মাসে সময় মত সিকিউরিটি আপডেটও পাওয়া যাবে। আর এ সব কিছুই শিয়াওমি অফিসিয়াল ভাবে জানিয়েছে । এছাড়াও স্টকঅ্যান্ড্রয়েড তো রয়েছেই যাMIUIলাভারদের জন্য কিছুটা দুঃখজনক বিষয় হলেও যারা স্টকঅ্যান্ড্রয়েড পছন্দ করেন তাদের জন্য বেশ ভালো খবর।তবেMIUIনা থাকলেওMIUIএর তিনটিঅ্যাপ (Feedback, mi remote,mi store)এতে আগে থেকেয় রয়েছে।।এদিক থেকে ডিভাইসটি পাবে ৯.৫/১০।

ব্যাটারি

mi A1 এ দেয়া হয়েছে নন-রিমুভেবল 3080 mAh ব্যাটারি যা আপাত দৃষ্টিতে কম মনে হলেও কম নয়। কারণ স্ন্যাপড্রাগন ৬২৫ একটি পাওয়ার এফিসিয়েন্সি প্রসেসর । তবে যেহেতু ডিভাইসটিতে ৫.৫ ইঞ্চির ফুল এইচডি ডিসপ্লে প্যানেল ব্যবহার করা হয়েছে সেজন্য ব্যাটারিটা আরেকটু বেশি দিলে ভালো হতো। তবে সাধারণ ব্যাবহারে ১ দিন এবং হেভি ইউসেজে ৫ ঘন্টা মত ব্যাকআপ পাওয়া যায়।
ডিভাইসটির আরো একটা পজেটিভ দিক হচ্ছে এতে ইউএসবি টাইপ সি(USB Type C ) প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে যে কারণে ডিভাইসটি দ্রূত চার্জ হতে সক্ষম।১০০% চার্জ হতে ২ঘন্টারো কম সময় লাগে।তাই এদিক থেকে ডিভাইসটি পাবে ৭.৭/১০।



        কেন কিনবেন                                                                         
  • প্রিমিয়াম ডিজাইন
  • স্মার্ট পার্ফমেন্স
  • উন্নত সাউন্ড কুয়ালিটি.
  • সফটওয়্যার আপডেট
  • ফাস্ট চার্জিং

       কেন কিনবেন না 
  •  অ্যাভারেজ ক্যামেরা
  • ব্যাটারি আরেকটু বেশি হলে ভালো হতো
    বাজারে এমন কোনো ডিভাইস খুজে  পাওয়া যাবেনা যেটা পুরোপুরি পারফেক্ট। সেদিক থেকে শিয়াওমি mi A1 এর ক্যামেরা এবং ব্যাটারির ঐ বিষয়গুলো খুব ছোটখাট মনে হয়েছে এবং এখানে উল্লেখ্য যে আপনি যদি কোনো হাই-এন্ড ডিভাইস এর আগে ব্যবহার না করে থাকেন তাহলে এই ফল্ট গুলো আপনার চোখে আসবেনা । সেক্ষেত্রে আমার মতে কম বাজেটে পারফেক্ট একটা  বাজেট ডিভাইস শিয়াওমি mi A1.
দামঃ ২২,৫০০/-
ওভারঅল রেটিংঃ ৭.৮/১০ ( রিকমেন্ডেড )

 কোন ভুলভ্রান্তি বুঝতে পারলে অথবা কোন পরামর্শ থাকলে কমেন্টে জানাবেন,লিখাটি পড়বার জন্য ধন্যবাদ।

No comments